চীনের সাংস্কৃতিক বিপ্লবের প্রতি আকৃষ্ট হলাম কেন ?

চীনের সাংস্কৃতিক বিপ্লবের প্রতি আকৃষ্ট হলাম কেন ?

আমার যখন থেকেই বুঝ হয়েছে তখন থেকে আমি নিজেকে একজন সাম্যবাদি হিসাবে তৈরী করার চেষ্টা করছি। বাল্য কাল থেকে দেখে আসছি যে, পুঁজিবাদী ব্যবস্থা সমাজে অন্যায় ও অবিচার করে আসছে। তরুন বয়সেই বিকল্প সমাজ ব্যবস্থা নিয়ে লেখা পড়া শুরু করেছিলাম। এবং কার্ল মার্ক্সের বই মাত্র ১২ বছর বয়সেই পড়তে শুরু করে দিয়েছিলাম। মাওবাদের সাংস্কৃতিক বিপ্লবের নানা পরীক্ষা নিরিক্ষা আমাকে সেই দিকে আকৃষ্ট করে। মাওবাদি প্রকল্প আমাকে বুঝতে শেখায় যে, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আগেই না নিতে পারলে সৌভিয়েতকে যে ভাবে আমলাতন্ত্র ধংস করেছে, সমাজকে যে ভাবে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। তা যে কোন সমাজতান্ত্রিক দেশকে ও ধ্বংস করে ফেলতে পারে। আমি আবার মাওবাদীদের চরম পন্থার বিষয়ে নিয়ে ও ভাবতাম। তাকে কোন কোন ক্ষেত্রে অর্থহীন মনে হত। সত্যিকার বিপ্লবী চিন্তার সাথে আমি তার একটা গরমিল দেখতে পেতাম। তা আমাকে আকৃষ্ট করলে ও আমার মনে হত যে, মাওবাদ ও সাম্রাজবাদ বিরোধী গন সংগ্রামের মাঝে কোন যোগসূত্র খুজে পেতাম না। তবে এটাকে একটি ভালো উদ্যোগ বলেই মনে হত। মাওবাদ আসলে তত্ত্ব ও ব্যবহারিক দিক দিয়ে একটি সাংস্কৃতিক বিপ্লবের কথাই বলে। ইহা একটি বিপ্লবী আন্দোলনের রাজ পথ । মাওবাদি চিন্তা ধারাকে আরো অগ্রসর করে আমরা একে বলছি আলোকিত সাম্যবাদ। গতানুগতিক পন্থায় মাওবাদ কায়েম করতে গেলে, এবং সাংস্কৃতিক বিপ্লবকে সেই ভাবে রাজনীতিতে টেনে আনতে চাইলে, আজকের দিনে তা চরম ভূল হবে। তবে এই বিষয়ে আরো চিন্তা ভাবনার অবকাশ আছে। ইহা খুবই গুরুত্ব পূর্নইস্যূ। পরে আরো বলব… তুষার মির্জা

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s